রাত ১১:০৮ | ৬ই মাঘ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জানুয়ারি, ২০১৮ ইং
ব্রেকিং নিউজ

মুশফিকদের প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই উদ্বোধন নতুন শেরে বাংলার!

স্পোর্টস ডেস্ক :  সবার জানা দেশের প্রধান ক্রিকেট ভেন্যু শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে বড় ধরনের সংস্কার কাজ হয়েছে। মাঠের মাঝের উইকেটগুলোকে অক্ষত রেখে পুরো আউটফিল্ডের ওপরের স্তরের ছয় থেকে আট ইঞ্চি পরিমান মাটি উপড়ে নতুন মাটি ফেলা এবং নতুন ঘাস লাগানো হয়েছে।

সংস্কার কাজের জন্য তাই পাঁচ মাসের বেশি সময় ধরে খেলা হচ্ছে না শেরে বাংলায়। আগেই বলা হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার সাথে দুই টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচ দিয়ে আবার নতুন করে মুখর হয়ে উঠবে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেট।

তবে ভেতরের খবর হচ্ছে, নতুন ঘাস লাগানোর কাজ শেষে শেরে বাংলার আউটফিল্ড মোটামুটি ব্যবহার উপযোগি হয়ে উঠেছে। জানা গেছে, আগামী ২৮ জুলাই থেকে যে ক্রিকেট অনুশীলন শুরু হবে, তার একটা অংশ হবে শেরে বাংলায়।

বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির চেয়ারম্যান হানিফ ভুঁইয়া আজ রাতে  জানিয়েছেন, `প্রধান কিওরেটর গামিনি ডি সিলভাকে মাঠ প্রস্তুত রাখার কথা বলা হয়েছে। আমি অগামী-পরশু মাঠ পরিদর্শনে যাব। আর কিওরেটরের সাথে কথা বলে ঠিক করবো, কবে থেকে মাঠ ব্যবহার উপযোগি হবে।’

মাঠ যেহেতু এখন পুরোপুরি প্রস্তুত, প্রধান কিওরেটর গ্রিন সিগন্যাল দিলেই হোম অব ক্রিকেটে বল গড়ানো সম্ভব হবে, সুতরাং, অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম টেস্ট শুরুর আগেই এখানে প্রস্তুতি ম্যাচ আয়োজন করে মুশফিক-সাকিবদের ঝালিয়ে নিতে চায় বিসিবি। সে লক্ষ্যে দুটি কিংবা তিনটি ২দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ আয়োজন হবে মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে। আর এই প্রস্তুতি ম্যাচ দিয়েই উদ্বোধন হবে নতুন করে প্রস্তুত করা হোম অব ক্রিকেটের।

এদিকে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু  জানিয়েছেন, `যেহেতু বেশ কিছুদিন সীমিত ওভারের ক্রিকেট খেলেছে ক্রিকেটাররা, তাই অস্ট্রেলিয়ার সাথে হোম সিরিজের আগে তাদের দীর্ঘ পরিসরের ম্যাচ প্র্যাকটিস জরুরী। তাই আমরা অন্তত তিনটি দু দিনের প্রস্তুতি ম্যাচ আয়োজনের চিন্তা-ভাবনা করেছি। ২৮ জুলাই ক্রিকেট অনুশীলন শুরুর পর দিনক্ষণ ঠিক করা হবে, কবে কবে দু`দিনের দীর্ঘ পরিসরের ম্যাচ হবে।’

অস্ট্রেলিয়ার সাথে টেস্ট সিরিজের দল ঘোষণা করা হবে কবে? প্রধান নির্বাচকের জবাব, `আমরা ঘরের মাঠে খেলবো। এত আগে দল চূড়ান্ত করবো কেন? টেস্ট সিরিজ শুরু ২৮ আগস্ট। এখনো দেড় মাসেরও বেশি সময় বাকি। সবে কাল অনুশীলন শুরু হচ্ছে। প্রথম ১৪ দিন তো ফিটনেস ট্রেনিংয়েই কাটবে। এরপর ব্যাট ও বলের অনুশীলন চলবে এক মাস। আর শেষ দিকে গিয়ে দল চূড়ান্ত করা হবে।’

প্রধান নির্বাচকের কথায় প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিত, টেস্ট সিরিজ শুরুর আগে তিন-চারটি দীর্ঘ পরিসরের প্রস্তুতি ম্যাচগুলোর পারফরমেন্সও হয়ত বিশেষ বিবেচনায় থাকবে। তাই অস্ট্রেলিয়ার সাথে টেস্ট সিরিজ শুরুর তিন-চার দিন আগেই হয়ত ১৪ জনের টেস্ট স্কোয়াড চূড়ান্ত হবে। তার মানে অবধারিতভাবেই আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে টেস্ট দল ঘোষণা হতে পারে।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *