রাত ১০:৪৪ | ৯ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২৩শে নভেম্বর, ২০১৭ ইং
ব্রেকিং নিউজ

দিনাজপুরে ৪২ বিজিবি’র প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন

শাহ্ আলম শাহী,স্টাফ রিপোর্টার,দিনাজপুর থেকেঃ ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন এর ১৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী দিনাজপুরে অনাড়ম্বর ভাবে উদযাপিত হয়েছে।
এ উপলক্ষে আজ রোববার সন্ধায় দিনাজপুর সেক্টরের সদর দপ্তর কুঠিবাড়িতে শহীদ কর্ণেল গুলজার হলরুমে কেক কাটা ও প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয়। ৪২ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহবুব মোর্শেদ ও উপ-পরিচালক মেজর হান্নান খান আগত অতিথিদের স্বাগত জানান।
এতে উপস্থিত ছিলেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মু. আবুল কাশেম, দিনাজপুর জেলা প্রশাসক মীর খায়রুল আলম, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুল ইমাম চৌধুরী, পৌর মেয়র সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) মোঃ আবু আউয়াল, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোঃ আব্দুল মোতালেব সরকার, র‌্যাব-১৩’র কোম্পানী অধিনায়ক মেজর তালুকদার নাজমুছ সাকিব, জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু তাহের মোঃ মাসুদ রানা, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার সিদ্দিক গজনবী, দিনাজপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি মোঃ মতিউর রহমান, বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল আউয়াল সরকার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহফুজ্জামান আশরাফ, মোঃ কাজেমউদ্দীন, মিজানুর রহমান, পল্লী বিদ্যুতের সিনিয়র জেনারেল ম্যানেজার কাজী মোহাম্মদ আলী, দিনাজপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র আহমেদুজ্জামান ডাবলু, হোটেল মৃগয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মনোজ দাশ, ৪২ বিজিবির সদস্যবৃন্দ, দিনাজপুর শিক্ষা বোর্ডের উর্ধত্বন কর্মকর্তাবৃন্দ, সাংবাদিক, চিকিৎসক, শিক্ষকসহ আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ। অনুষ্ঠানে বিজিবি’র ১৪ বছরের সাফল্য গাঁথা সংক্ষেপে তুলে ধরে একটি তথ্যচিত্র উপস্থাপন করেন ৪২ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল মাহবুব মোর্শেদ।
৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন ২০০২ সালে ০১ জুলাই খুলনায় প্রতিষ্ঠা লাভ করে। ব্যাটালিয়নের কৈশোর না পেরুতেই এর সাফল্য ও প্রাপ্তি অনেক। দেশের সার্বভৌমত্ব ও অখন্ডতা রক্ষা, চোরচালান ও মাদক চোরাচালান দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, অবৈধ অভিবাসী উদ্ধার এবং মায়ানমার নাগরিক অনুপ্রবেশ দমন অভিযানে দেশের প্রতি এ ব্যাটালিয়ন অবদান অনস্বীকার্য। গত ১১ মার্চ ২০০৮ তারিখ হতে ০২ নভেম্বর ২০১৫ তারিখ পর্যন্ত ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন, টেকনাফ এলাকায় দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে সীমান্ত রক্ষা, চোরচালান দমন, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, মালয়েশিয়াগামী আদম পাচার রোধ ও মায়ানমার নগারিক অনুপ্রবেশ রোধসহ মায়ানমারের শান্তিপূর্ন সহ অবস্থান বজায় রাখার মাধ্যমে সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছে। এই ব্যাটালিয়ন গত ২০১৪ ও ২০১৫ সালে সমগ্র বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর মধ্যে ‘‘দ্বিতীয় স্থান’’ অর্জন করতে সক্ষম হয়। এছাড়াও ব্যাটালিয়ন টেকনাফ এ অবস্থানকালীন ০৮ জুন ২০১২ তারিখে মায়ানমারের রাখাইন স্টেটে মগ-রাখাইন ও মায়ানমার মুসলমানদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার ফলে সহ¯্রাধিক মায়ানমার নাগরিক বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ প্রচেষ্টাকে মানবিকভাবে প্রতিহত করতঃ স্বদেশে ফেরৎ পাঠাতে সক্ষম হয়ে সরকার ও দেশের বিভিন্ন মহল হতে ভূয়সী প্রশংসা অর্জন করে। ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন গত ০৩ নভেম্বর ২০১৫ তারিখে টেকনাফ হতে দিনাজপুরের কুঠিবাড়ীতে স্থলাভিষিক্ত হয়। ব্যাটালিয়ন দিনাজপুরে দায়িত্বভার গ্রহণের পড় হতে প্রতিবেশী দেশ ভারত এর সাথে বন্ধত্বপূর্ণ সম্পক্য বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে। যার ফলে ব্যাটালিয়নের দায়িত্বপূর্ণ এলাকায় পূর্বের তুলনায় চোরাচালান অনেক হ্রাস পেয়েছে এবং সীমান্ত হত্যা শুণ্যের কোটায় নেমে এসেছে। ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন প্রতিষ্ঠার পর হতে অদ্যবদি বিভিন্ন কৃতিত্বপূর্ণ কর্মকান্ডের স্বীকৃত স্বরুপ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ পদক-০৪ জন, রাষ্ট্রপতি বর্ডার গার্ড পদক-০৭ জন এবং রাষ্ট্রপতি বর্ডার গার্ড সেবা পদক-০৩ জন প্রাপ্ত হয়েছে। এছাড়াও ৬৯ জন বিভিন্ন পদবীর সৈনিক মহাপরিচালক বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর অপারেশনাল ও প্রশাসনিক প্রশংসাপত্র পাওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। তাছাড়ও বিভিন্ন সময়ে দেশের আইন শৃঙ্খলা ও জনসাধরনের নিরাপত্তা রক্ষার্থে বেসামরিক প্রশাসনের আহ্বানে পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরির্ষদ নির্বাচন কোন প্রকার দূর্ঘটনা ছাড়াই সম্পন্ন করায় বেসামরিক প্রশাসন ও জনসাধরনের আস্থা অর্জন করতে সক্ষম হয়েছে।
৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের দায়িত্বপূর্ণ এলাকা কম চোরাচালান প্রবণ এলাকা হওয়া সত্ত্বেও এই ব্যাটালিয়ন ২০১৭ সালে জানুয়ারি হতে জুন মাস পর্যন্ত মোট ৩৬,৯১,৭৪৫/- (ছত্রিশ লক্ষ একানব্বই হাজার সাতশত পয়তাল্লিশ) টাকা মূল্যের চোরাচালানী মালামালসহ ২৯ জন মাদকদব্য পাচার ও চোরাকারবারীকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে। এছাড়াও এ ব্যাটালিয়ন সীমান্ত রক্ষা, চোরাচালান দমন ও অভ্যন্তরীণ শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষায় অত্যন্ত সফলতার সাথে দায়িত্ব পালন করেছে। ৪২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন বিভিন্ন অপারেশনাল কর্মকান্ডে ও চোরচালান দমন কাজে নিয়োজিত থাকার পাশাপাশি রংপুর রিজিয়ন আন্তঃ ব্যাটালিয়ন বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করে আযান ও ক্বেরাত প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন এবং কুস্তি প্রতিযোগিতায় রানার আপ হওয়ার গৌরব অর্র্জন করে।

 

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *