সকাল ১০:২২ | ২৭শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ১১ই ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
ব্রেকিং নিউজ

তারেক রহমান ২১ অাগস্ট ঘটনার সঙ্গে জড়িত : প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার :  অাওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিএনপির প্রতি ইঙ্গিত করে বলেছেন, অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে ২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা চালানো হয়েছে। তারেক রহমান ও বিএনপির তৎকালীন মন্ত্রিপরিষদের কয়েকজন সদস্য এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। কারণ তারেক রহমান ওই সময় ১০ মাস তার ধানমন্ডির শ্বশুর বাড়িতে ছিলেন। এতদিন শ্বশুর বাড়িতে থেকে উনি কি করেছেন। অার ২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলার কয়েকদিন অাগে তারেক ক্যান্টনমেন্টের বাসায় যান।

সোমবার বিকেলে ২১ অাগস্ট গ্রেনেড হামলা দিবস উপলক্ষে অাওয়ামী লীগ অায়োজিত এক অালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে অায়োজিত এ অালোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী। বিকেল ৪টা ৫ মিনিটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউটে এসেই ২১ অাগস্ট উপলক্ষে নির্মিত অস্থায়ী বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি।

সভার শুরুতেই অাওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন। এরপর ২১ অাগস্টের শহীদদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দলের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ ও উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক অামিনুল ইসলাম।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, স্বাধীনতার পক্ষের শক্তিকে নিশ্চিন্ন করার জন্যই ২১ অাগস্ট বোমা হামলা হয়েছিল। ২০০০ সালে কোটালীপাড়া বোমার ঘটনার অাগে অামার নাম ধরে খালেদা জিয়া বলেছিলেন, অাওয়ামী লীগ ১০০ বছরের মধ্যে ক্ষমতায় যেতে পারবে না। ২১ অাগস্টের ঘটনার অাগে বিএনপি নেতারা বলেছিলেন, অারেকটা ১৫ অাগস্টের ঘটনা ঘটবে। অবশেষে তাদের কথায় সত্য হয়েছে। তাদের এ ধরনের বক্তব্য দেয়ার কিছুদিনের মধ্যেই ২১ অাগস্টের ঘটনা ঘটে।

শেখ হাসিনা বলেন, তারা শুধু গ্রেনেড হামলাই করেননি, গ্রেনেড হামলার পর সাধারণ জনগণ যখন অাহত নিহতদের উদ্ধার করতে এসেছে তখন পুলিশ তাদের ওপর লাঠি চার্জ করেছে। টিয়ারসেল নিক্ষেপ করে হামলাকারীদের পালিয়ে যেতে সহযোগিতা করেছে। তৎকালীন পিজি হাসপাতাল, ঢাকা মেডিকেল কলেজে বিএনপি সমর্থিত ডাক্তাররা তখন চিকিৎসা করেননি।

তিনি আরও বলেন, ওই দিন অামার বক্তব্য শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে অাক্রমণটা হয়। হানিফ ভাইসহ অারেও কয়েকজন নেতা মানব ঢাল তৈরি করে এবং অাল্লার বিশেষ রহমতে অামি রক্ষা পাই। গাড়িতে উঠে রওনা দেয়ার সময় অামার বডিগার্ড মাহবুব গুলিতে নিহত হন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২১ অাগস্টের ঘটনা নিয়ে যখন অামরা সংসদে কথা বলতে চাইলাম তখন অামাদের কথা বলতে দেয়া হয়নি। এক পর্যায়ে খালেদা জিয়া তার বক্তব্যে বলেন, ওনাকে কে মারতে যাবে। অাবার বলা হলো অামিই নাকি ভ্যানেটি ব্যাগে করে গ্রেনেড নিয়ে গেছি। এই হামলা নিয়ে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্য অনেক মিথ্যা প্রচারণা চালানো হয়।

তিনি বলেন, ওনারা বলেছিলেন, ১০০ বছরে ক্ষমতায় যেতে পারব না, কিন্তু ১০০ বছর লাগেনি। তার অাগেই ক্ষমতায় এসেছি, জনগণের উন্নয়নে কাজ করছি। এ দেশের গণতন্ত্রকে নস্যাৎ করার জন্য বার বার ষড়যন্ত্র হয়েছে। অামরা অাগেই বলেছি, বন্যার্ত মানুষের খাদ্য অাগেই মজুদ আছে। একটি লোকও না খেয়ে মরবে না। বিএনপি ভোটে অাসে নাই। কেউ যদি ভোটে নো অাসে, কোনো প্রার্থী যদি না থাকে তাহলে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হবে এটাই স্বাভাবিক।

অালোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন অাওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ও শিল্পমন্ত্রী অামির হোসেন অামু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল অাহমেদ, অাওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ অাশরাফুল ইসলাম, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, বালাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি, বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, তরিকত ফেডারেশনের সভাপতি সৈয়দ নজিবুল বসার মাইজভান্ডারী, জাসদের সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ুয়া, কথাসাহিত্যিক ও কালের কণ্ঠের সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, জাসদের একাংশের কার্যকরী সভাপতি মঈন উদ্দিন খান বাদল ও অাওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অাফম বাহাউদ্দিন নাছিম।

এই বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *